বাঙালির তীর্থস্থান

১৫ আগষ্ট ২০২০ ০৩:৩৯:২৫
বাঙালির তীর্থস্থান

বাঙালির তীর্থস্থান

গুলজার হোসেন গরিব


যে আশায় বাংলার জন্ম দিলে এটা মানুষের দেশ হবে

সেই আশারা মিথ্যা করেছে তোমার আশার শৈশবে।

জানো না তুমি আজ এই ভূমি রক্তে রক্তে হয় যে লাল

ফুলেফুঁসে ওঠে রাজ্য গিলিতে,যেমনি সাগর হয় উত্তাল।

মানেনা এখানে কেউ কাউকে ভেদাভেদ করে সর্বক্ষণ

একই হাওয়া নিশ্বাসে নেয়, তবু হয় না কেউ আপন।

জীবন-যাপন এই মাটিতে, এই মাটি না বানায় দেশ

গড়ে না কেহ এই মাটি নিয়ে, প্রাণ জুড়ানো অধ্যাদেশ।

শুধু খুঁজে ফেরে বিবাদ বিভেদ ধ্বংস করার মন্ত্রটা

বিবেক শানিত হয় না তাদের আলোয় গড়তে ভুবনটা।

পড়ে আছে ওই রেঁষারেঁষিতে যেমন ছিলো আগের লোক

হয় নি সজাগ ঘুমে মরে আছে, বিচক্ষণে জ্ঞানের চোখ।

দল বে-দলে বসবাস করে রাষ্ট্রে সমাজ সংসারে

ধর্ম বিদ্বেষ ছড়িয়ে আছে প্রতি ঘরে অহংকারে।

জানেনা বুঝি আসেনি এদেশ ধর্মের কোনো জের ধরে

এসেছে এদেশ এনেছে মানুষ মানবতায় ভর করে।

এ তো নয় সেই সাতচল্লিশের ধর্ম গুনে খণ্ড-ভাগ

রায়েট বাঁধিয়ে হানাহানি করে সবাই মেটাবো মনের রাগ।

একাত্তরে জাতপাত ভুলে যুদ্ধ করলো যাঁরা

মায়ের শ্রেষ্ঠ সন্তান বলো তাঁদের ছাড়া কারা?

ভাগ করেনি হিন্দু বৌদ্ধ মুসলিম খৃষ্টান

দেশ জাতি টানে যুদ্ধ করেছে দেখেছি হৃদয় টান!

আল্লা ভগবান কে বলেছে ধর্মের জন্য মানুষ মার?

এমন আদেশ দেয় কি প্রভু যেখানে মানুষ সবই তাঁর?

জানিনা কেনো যুদ্ধ আজো ধর্ম নিয়ে বাংলাতে

কারা যুদ্ধে মদদ দিচ্ছে মারছে মানুষ হামলাতে

যারা ভাবে মারবে মানুষ এই বাংলার প্রাণ জুড়ে

তারা কেউ কি বাংলাদেশী গায় বাংলার গান সুরে?

ধর্মটারে হাতিয়ার করে যারা বাঁধায় গোণ্ডগোল

জেগে ওঠরে বাঙালি সত্ত্বা জোরছে হেঁকে সমূল তোল।

একে অন্যের সম্পূরক নয় দেখায় হিংস্র হিংসা রূপ

বাঙালি বাংলাদেশী হয়ে ভাষার জন্যেও হয় না চুপ।

বাংলাদেশটা হতো যদি সব বাঙালির তীর্থস্থান

তবেই এদেশ ধন্য হতো ধন্য হতো বাঙালি প্রাণ।

মন্তব্য

এই নিবন্ধটি জন্য কোন মন্তব্য নেই.

আপনার মন্তব্য লিখুন